অনলাইন ইনকাম এর ১৫ টি সহজ পদ্ধতি।

অনলাইন ইনকাম

 

 

 

অনলাইন ইনকাম ( Online income ) এর যে কত পথ আছে তা বলে শেষ করা যাবে না। ইতোমধ্যে আমরা দুইটি পোস্টে অনলাইন ইনকাম ( Online income ) সমন্ধে আলোচনা করেছি। আজ আমরা আরোও কিছু অনলাইনে ইনকামের পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করবো। অনলাইন ইনকাম ( Online income ) সমন্ধে আরোও ধারণা পেতে আমাদের আগের পোস্ট গুলো দেখে আসার অনুরোধ রইলো। তো দেরি না করে চলুন শুরু করি।

 

অনলাইন ইনকাম এর ১৫ টি সহজ পদ্ধতি ( 15 easy ways to make money online ) 

 

 

১. টিউশনি করিয়ে অনলাইনে ইনকাম ( earn money by doing tution )

 

অনলাইন ইনকামের সেরা মাধ্যম গুলোর মধ্যে একটি হলো অনলাইনে টিউশনি করিয়ে ইনকাম। বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের প্লাটফর্ম আছে যেখানে একজন টিচার হয়ে কাজ করা যায় এবং টাকা ইনকাম করা যায়। আপনি চাইলে ইউটিউবে টিউশনি করিয়ে খুব সহজেই টাকা ইনকাম করতে পারেন। তাছাড়া আপনি কিছু দুর দুরান্তের ছাত্র যোগাড় করে তাদের অনলাইনে পড়িয়ে ইনকাম করতে পারেন। বাংলাদেশে অনলাইন টিচারের অনেক অভাব রয়েছে। তাই একজন অনলাইন টিউটর হয়ে খুব সহজেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন। তবে এর জন্য এক বা একাধিক বিষয়ের উপর ভালো হতে হবে।

 

 

২. ফেসবুক মার্কেটিং করে অনলাইনে ইনকাম ( earn money by doing facebook marketing )

 

বর্তমানে সোশ্যাল মার্কেটিং এর দুনিয়ায় ফেসবুক মার্কেটিং ( facebook marketing ) সবথেকে বেশি জনপ্রিয়। খুব সহজেই ফেসবুক মার্কেটিং ( facebook marketing ) করে ইনকাম করা যায়। ফেসবুকে একটি বিজনেস খুব তাড়াতাড়ি দার করানো যায়। ফেসবুক মার্কেটিং ( facebook marketing ) নিয়ে আমাদের সম্পুর্ন সিরিজ আছে সেগুলো ফলো করতে পারেন। এর জন্য আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকতে হবে। এবার মুল কথায় আসি। ফেসবুকে আপনি চাইলে অনলাইন বিজনেস শুরু করতে পারেন এবং মুনাফা আয় করে লাভবান হতে পারেন। বর্তমানে অনেকেই ফেসবুকে নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করেছে। আপনার যদি বিজনেস স্ট্র্যাটিজি ভালো হয় তাহলে খুব সহজেই ফেসবুক মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারবেন।

 

আরোও পড়ুন: ফেসবুক থেকে ইনকাম ২০২২ | earn money from Facebook 2022

 

৩. ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইনে ইনকাম ( earn money by making websites )

 

বর্তমানে ছোট বড় অনেক কোম্পানির ওয়েবসাইট ( Website ) দরকার হয়। শুধু কোম্পানির না মাত্র একজন লোকেরও ওয়েবসাইট প্রয়োজন হয়। অনেকে একা একা ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারে না তাই একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার খুজে বেড়াই। আপনি যদি ভালো ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন তাহলে খুব সহজেই অন্যের ওয়েবসাইট তৈরি করে দিয়ে অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে অনেকে ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইনে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে।

 

আরোও পড়ুন: ব্লগার ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করার উপায়। ব্লগার নিয়ে সম্পুর্ন গাইড লাইন।

 

 

৪. বিজ্ঞাপন তৈরি করে অনলাইনে ইনকাম ( earn money by making ads )

 

পন্য প্রচারের জন্য ছোট বড় অনেক কোম্পানি বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। তবে বিজ্ঞাপনে যে উপকরণ ব্যবহার করা হয় তা যথাসম্ভব সুন্দর না হলে ভালো ভাবে পন্যের প্রচার হয় না। অতএব একটি ভালো মানের বিজ্ঞাপন তৈরি করা অত্যন্ত জরুরি। তাই বড় বড় কোম্পানি গুলো বিভিন্ন ধরনের লোক ধরে বেড়াই যারা সুন্দর বিজ্ঞাপন তৈরি করতে পারে। আপনি যদি ভালো মানের বিজ্ঞাপন তৈরি করতে পারেন তাহলে খুব সহজেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্রে অনেকেই বিজ্ঞাপন তৈরি করে ইনকাম করছে।

 

 

৫. রিসেলিং করে অনলাইনে ইনকাম ( earn money by reselling )

 

বর্তমানে জনপ্রিয় অনলাইন ইনকামের মধ্যে রিসেলিং ( reselling ) করে আয় সবথেকে বেশি জনপ্রিয়। বিশেষ করে ডোমেইন হোস্টিং রিসেলিং ( domain and hosting reselling ) করে আয় বেশি জনপ্রিয়। এখন রিসেলিং করে ইনকাম কিভাবে করা যায়? এর জন্য আপনাকে টাকা দিয়ে কিছু জিনিস কেনা লাগবে এবং সেগুলো আবার বিক্রি করে আপনি মুনাফা আয় করতে পারবেন। ডোমেইন হোস্টিং এর ক্ষেত্রে অনেক হোস্টিং কোম্পানি আছে যারা রিসেলার হোস্টিং এবং ডোমেইন দিয়ে থাকে। এখন তাদের কাছ থেকে আপনাকে রিসেলার হোস্টিং কিনে তা লাভে বিক্রি করতে হবে। এভাবেই আপনি রিসেলিং করে খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

 

 

৬. ইবুক লিখে অনলাইনে ইনকাম ( earn money by writing Ebooks )

 

ইবুক ( e-book ) বা ইলেকট্রনিক বুক অনলাইনে বই পড়ার জন্য একটি বিশেষ মাধ্যম। বাস্তব দুনিয়ায় আমরা যেমন বই লিখে সেগুলো বিক্রি করে ইনকাম করি ঠিক তেমনি অনলাইনে বই লিখে টাকা ইনকাম করা যায়। বর্তমানে অনেক প্লাটফর্ম গড়ে উঠেছে যেখানে বই বিক্রি করার জন্য জমা দিতে হয় এবং কারো ভালো লাগলে সেই বই সে কিনে নেয়। এভাবে আপনি একটি বই লিখে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন। তাছাড়া এমন কিছু বই আছে যেগুলো শুধু বাস্তব জীবনে পড়া যায় অর্থাৎ অনলাইনে যার অস্তিত্ব নেই। এমন বই গুলোর অনলাইন সংস্করণ করে আপনি সেগুলো বিক্রি করে ইনকাম করতে পারেন। তাছাড়া আরেকটি সহজ পদ্ধতি হলো বই অনুবাদ করে প্রকাশ করা। কিছু ইংরেজি বা অন্যান্য ভাষার বই আপনি অনুবাদ করে সেগুলো বিক্রি করতে পারেন। এভাবে আপনি ইবুক লিখে খুব সহজেই অনলাইনে আয় করতে পারবেন।

 

 

৭. কোর্স তৈরি করে অনলাইনে ইনকাম ( Online income by creating courses )

 

একটি বিষয়ের উপর অভিজ্ঞ হলে আপনি তার উপর একটি কোর্স তৈরি করতে পারেন এবং খুব সহজেই সেই কোর্স গুলো বিক্রি করে অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে অনেক প্লাটফর্মে কোর্স বিক্রি করা যায়। যেমন ইউডেমি, স্কিলশেয়ার, স্কিলপিওর ইত্যাদি। সেখানে আপনাকে আপনার কোর্স জমা দিতে হবে। এবার যত লোক আপনার কোর্স কিনবে আপনি তত ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমানে অনেকেই কোর্স তৈরি করে প্রচুর টাকা ইনকাম করছে। তবে এর জন্য একটি বিষয়ের উপর অনেক অভিজ্ঞ হওয়া লাগে।

 

 

৮. মোবাইল রিচার্জের ব্যবসা করে অনলাইনে ইনকাম ( Online income by doing mobile recharge business )

 

বর্তমানে সব মোবাইল অপারেটর কোম্পানি যারা মানুষদের রিচার্জ দেই তাদের কিছু কমিশন দিয়ে থাকে। এতে দুই পক্ষেরই লাভ হয়। বর্তমানে অনলাইনে ও রিচার্জের ব্যবসা শুরু করা যায়। শুধু রিচার্জ নয় ইন্টারনেটের ব্যবসাও এখন অনলাইনে করা যায়। এর জন্য আপনাকে কম টাকাই রিচার্জ কিনতে হবে এবং পরে সেগুলো বেশি দামে বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। বর্তমানে অনেক সেলার আছে যারা রিচার্জ বিক্রি করে। তাদের কাছ থেকে রিচার্জ কিনে ব্যবসা শুরু করে দিন এবং হাজার হাজার টাকা ইনকাম করুন।

 

 

৯. এজেন্ট হয়ে অনলাইনে আয় ( Earn money online by become an agent )

 

বর্তমানে অনেক কোম্পানি আছে যাদের অনলাইন এজেন্ট প্রয়োজন হয়। বিশেষ করে তাদের ব্যবসা প্রসারের জন্য এজেন্ট অবশ্যই লাগে। বর্তমানে মোবাইল ওয়ালেট কোম্পানি গুলো এজেন্ট ছাড়া অচল। কারন তাদের এজেন্টের কাছ থেকেই লোকে টাকা উত্তোলন করে। কিন্তু একজন এজেন্ট তো এমনি এমনি তাদের টাকা উত্তোলন করতে সাহায্য করবে না। এর জন্য তাদের কিছু কমিশন দেওয়া লাগে। বর্তমানে অনেকে বিকাশ এজেন্ট হয়ে ইনকাম করছে। কারন বিকাশ বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় মোবাইল ওয়ালেট। বিশেষ করে যাদের বাজার বা জনবসতি পুর্ন এলাকায় দোকান আছে তারা এরকম এজেন্ট হয়ে ইনকাম করছে। আপনার যদি এমন দোকান বা ব্যবসা থাকে তাহলে বিকাশের এজেন্ট হয়ে আনলিমিটেড কমিশন নিয়ে ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে বাড়ি থেকেই অনলাইনে এজেন্ট হওয়া যায়।

 

 

১০. ফটো বিক্রি করে অনলাইনে ইনকাম ( Income online by selling photos )

 

এটি শুনে আপনি হয়তো অবাক হচ্ছেন। ফটো বিক্রি ( photo selling ) করে সত্যিই ইনকাম করা যায়? হ্যা ফটো বিক্রি করে খুব সহজেই আপনি হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারেন। শুধু ফটো নয় আইকন, পি এন জি, ভেক্টর ইমেজ ইত্যাদি বিক্রি করেও আপনি খুব সহজেই টাকা ইনকাম করতে পারেন। ফটো সাধারণত আমরা শখের বশে তুলে থাকি। তবে আপনার একটি সুন্দর ফটোর মুল্য হাজার হাজার টাকা হতে পারে। বর্তমানে অনেক মার্কেটপ্লেস আছে যেখানে ফটো বিক্রি করে ইনকাম করা যায়। আবার একটি ফটো তুলতে হলে আলাদা করে ক্যামেরার প্রয়োজন হয় না। বর্তমানে মোবাইল দিয়েই খুব সহজে সুন্দর সুন্দর ফটো তোলা যায়। অতএব নিজের স্মার্টফোন নিয়ে ফটো তুলুন এবং অনলাইনে আয় করুন।

 

 

১১. ক্রিপ্টোকারেন্সি থেকে অনলাইনে ইনকাম ( Online income from cryptocurrency )

 

ক্রিপ্টোকারেন্সি ( cryptocurrency ) একটি সম্ভাবনা ময় ভবিষ্যতের মুদ্রা। অবাক করা বিষয় হলো ক্রিপ্টোকারেন্সির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত সকল মুদ্রার মুল্যমান সবসময় পরিবর্তন হয়। অতএব এর থেকে খুব সহজেই লাভবান হওয়া যাবে। ধরুন আপনি কিছু ক্রিপ্টোকারেন্সি ১০০ টাকায় কিনলেন। পরে দেখলেন এর দাম বেড়ে হয়ে গেছে ১২০ টাকা। এখন আপনি যদি সেগুলো বিক্রি করেন তাহলে আপনার ইনকাম হবে ২০ টাকা। এরকম ইনকাম করার পদ্ধতিকে ট্রেডিং বলে। তাছাড়া বিভিন্ন ভাবে ক্রিপ্টোকারেন্সি থেকে ইনকাম করা যায় যেমন:- এয়ারড্রপ, মাইনিং, ইনভেস্ট, বেটিং ইত্যাদি। তবে বেটিং অর্থাৎ বাজি ধরা এবং ইনভেস্ট থেকে দুরে থাকাই ভালো।

 

 

১২. সার্ভে পুরন করে অনলাইনে ইনকাম ( Online income by completing the survey )

 

বর্তমানে জনপ্রিয় অনলাইন ইনকাম মাধ্যমের মধ্যে সার্ভে পুরন করে ইনকাম অনেক বেশি জনপ্রিয়। বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের মার্কেটপ্লেসে পেইড সার্ভে পাওয়া যায় এবং সেগুলো পুরন করে খুব সহজেই ইনকাম করা যায়। এখন প্রশ্ন হতে পারে এসব সার্ভে কারা দেই। অনেক ছোট বড় কোম্পানি আছে যাদের পন্য বা সেবা জনগন পছন্দ করবে কি না সেটা তাদের জানতে হয়। এর জন্য সার্ভে সর্বোত্তম মাধ্যম। বর্তমানে সার্ভে পুরন করে মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করা যায়। বাংলাদেশে সার্ভে পুরন করে ইনকাম করার মতো ভালো মার্কেটপ্লেস নেই। বেশিরভাগ ভালো মার্কেটপ্লেস বাংলাদেশে চলে না। তাই আমাদের অন্য দেশের আইপি, প্রক্সি, নাম্বার ইত্যাদি ব্যবহার করতে হয়। এর জন্য প্রথম দিকে টাকা খরচ করা লাগতে পারে। কিন্তু পরবর্তীতে খুব সহজেই ইনকাম করা যায়।

 

 

১৩. অ্যাপ তৈরি করে অনলাইনে ইনকাম ( Online income by creating apps )

আপনি যদি ভালো মানের অ্যাপ তৈরি করতে পারেন তাহলে সেই অ্যাপ বিক্রি করে অথবা কোনো অ্যাপ স্টোরে সাবমিট করে অনলাইনে আয় করতে পারেন। বর্তমানে অনেকেই অ্যাপ ডেভেলপার খোজে। ছোট বড় অনেক কোম্পানির অ্যাপ দরকার হয় এবং তার জন্য তারা অনেক টাকা পারিশ্রমিক দিতেও রাজি থাকে। তাদের কাছে আপনি অ্যাপ বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন। আরেক ভাবেও অ্যাপ দিয়ে ইনকাম করা যায়। এর জন্য আপনার অ্যাপ অনেক লোক ব্যবহার করতে হবে। বর্তমানে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অনলাইনে আয় করা যায়। আপনিও আপনার অ্যাপে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

 

 

১৪. ফেসবুক পেজ বুস্ট করে অনলাইনে ইনকাম ( Online income by boosting Facebook page )

 

অনেক লোক আছে যাদের ফেসবুক পেজ বুস্ট করতে হয়। কিন্তু পেমেন্ট ম্যাথড না থাকার কারণে তারা অন্য জন কে দিয়ে বুস্ট করিয়ে নেই যাদের কাছে পেমেন্ট ম্যাথড থাকে। আপনার কাছে যদি এরকম পেমেন্ট ম্যাথড থাকে তাহলে অন্যের ফেসবুক পেজ বুস্ট করে মুনাফা আয় করতে পারেন। বর্তমানে ফেসবুকে মাস্টারকার্ড, ভিসা কার্ড এবং পেইপাল দিয়ে বুস্ট করা যায় যা অনেকের কাছে থাকে না। আপনি চাইলে একটি কার্ড কিনে নিতে পারেন এবং বুস্ট করার ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন।

 

 

১৫. গ্রাফিক্স ডিজাইন করে অনলাইনে ইনকাম ( Online income by graphics design )

 

গ্রাফিক্স ডিজাইনের কদর বর্তমানে অনেক। প্রচুর কোম্পানি আছে যাদের ব্যানার, লোগো, কভার ইত্যাদির প্রয়োজন হয়। সেগুলো কোনো দক্ষ লোকের কাছ থেকে ডিজাইন করিয়ে নিতে হয়। আপনি যদি ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইন পারেন তাহলে অন্যের কাজ করে দিয়ে ইনকাম করতে পারেন। একজন ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইনার ইচ্ছা করলেই মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারে। তাছাড়া ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্রে গ্রাফিক্স ডিজাইনের অনেক কদর।

 

আশাকরি সবাই কিছুটা জ্ঞান লাভ করতে পারলেন। যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন এবং আমাদের সাথে থাকুন।

 

ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Comment