ফেসবুক থেকে আয় ২০২২: ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়?

ফেসবুক থেকে আয় ২০২২




ফেসবুক থেকে আয় ২০২২ 

ফেসবুক থেকে খুব সহজেই আয় করা যায় এমন কথা আমরা অনেক স্থানেই শুনে থাকি। কিন্তু কিভাবে ফেসবুক থেকে আয় করা যায় এ বিষয়ে আমরা অনেকেই জানি না। আজ আমি ফেসবুক থেকে কিভাবে এবং কত ভাবে আয় করতে পারবেন সেসব নিয়ে সম্পুর্ন আলোচনা করবো। দেরি না করে চলুন শুরু করি।


পেজের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২ 

বর্তমানে ফেসবুক পেজ এমন একটি মাধ্যম যেখানে আপনি ছবি, টেক্সট, ভিডিও ইত্যাদি শেয়ার করতে পারবেন। বর্তমানে বিভিন্ন ভাবে ফেসবুক পেজ থেকে আয় করা যায়। চলুন দেখে নিই কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে আয় করবেন।


১. ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার সবথেকে ভালো মাধ্যম হলো মনিটাইজেশন। তবে এর জন্য পেজে ভিডিও আপলোড দেওয়া লাগবে। এছাড়া আরোও কিছু শর্ত পূরণ করে আপনাকে মনিটাইজেশন পেতে হবে। প্রথমত আপনাকে ভিডিও আপলোড দেওয়া লাগবে। তারপর আপনার পেজে কমপক্ষে ১০০০০ ফলোয়ার থাকতে হবে। এরপর আপনার আপলোড দেওয়া ভিডিওতে এক মাসের মধ্যে ৩০০০০ মিনিট ওয়াচটাইম থাকা লাগবে। এক্ষেত্রেও শুধু ৩ মিনিটের উর্ধে যেসব ভিডিও থাকবে সেগুলোর ওয়াচটাইম কাউন্ট করা হবে। আবার আপনার পেজের ভিডিও ফেসবুকের ভাষাগত পলিসি অনুযায়ী হতে হবে। অর্থাৎ ফেসবুক শুধু নির্দিষ্ট সংখ্যক ভাষার ভিডিওতে মনিটাইজেশন দেবে। তবে ভয় পাওয়ার কিছু নেই বাংলা ভাষাতেও ফেসবুক মনিটাইজেশন দেই। এই শর্ত গুলো পুরন করতে পারলে আপনি ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন পেতে পারেন। এরপর ফেসবুক আপনার ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখাবে এবং সেই বিজ্ঞাপনে যত ক্লিক পড়বে আপনি তত আয় করতে পারবেন। এভাবেই পেজ মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে আয় করা যায়।


অবশ্যই পড়বেন: অনলাইন ইনকাম এর ১৫ টি সহজ পদ্ধতি

২. স্পন্সর নিয়ে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

কেবল যাত্রা শুরু করেছে এমন কোম্পানি তাদের পন্য প্রচারের জন্য অনেক জনপ্রিয় পেজ কে স্পন্সর দিয়ে থেকে। এতে দুই পক্ষেরই লাভ হয়। এর জন্য আপনাকে এমন একটি মাধ্যম রাখতে হবে যেনো যে স্পন্সর দেবে সে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে। এরপর সে আপনাকে পন্য সম্পর্কে বুঝিয়ে দেবে এবং আপনি আপনার ভিডিওতে সেই পন্য নিয়ে রিভিউ দিবেন। এর বিনিময়ে সে কিছু টাকা আপনাকে দেবে। এভাবেই আপনি স্পন্সর নিয়ে আয় করতে পারেন। ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় হয়ে গেলে স্পন্সর থেকে অনেক বেশি আয় আসার সম্ভাবনা থাকে।




৩. আফিলিয়েট মার্কেটিং করে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো আফিলিয়েট মার্কেটিং। বর্তমানে পেজ থেকে সবথেকে বেশি আফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করা হয়। এর প্রধান কারণ ফেসবুকে প্রচুর লোক থাকে যারা বিভিন্ন জিনিস অনলাইনে কেনাকাটা করে। এখন আপনি যদি আপনার আফিলিয়েট লিংক দিয়ে তাদের পন্য কেনাতে পারেন তাহলে খুব সহজেই কমিশন আয় করতে পারবেন। এখন আফিলিয়েট মার্কেটিং কি আগে জানা দরকার। ধরুন একজন লোক কোনো কোম্পানির একটি পন্য বেচতে সাহায্য করলো। এতে সেই কোম্পানির অনেকটা লাভ হলো। কিন্তু যে পন্য বেচতে সাহায্য করেছে তাকে অবশ্যই কমিশন দেওয়া লাগবে। এভাবেই আফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় করা যায়। বর্তমানে অনেক ই-কমার্স সাইট আছে যেখানে আফিলিয়েট জোন থাকে। সেখানে আপনি সাইন আপ করলে বিভিন্ন পন্যের আফিলিয়েট লিংক আপনাকে দেওয়া হবে। এখন সেই আফিলিয়েট লিংক থেকে যত জন পন্য কিনবে আপনার আয় তত হবে। পরে সেই টাকা গুলো আপনি উত্তোলন করে নিতে পারবেন।


৪. বিজনেস প্রমোট করে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

আপনার যদি একটি অনলাইন বিজনেস থাকে তাহলে সেটি প্রচার করতে পারেন আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে। খুব সহজেই আপনার পন্য পৌঁছে দিতে পারেন জনগণের মাঝে। তাছাড়া কিছু টাকা খরচ করে একটি পোস্ট বুস্ট করা যায়। বুস্ট করলে সেই পোস্ট হাজার হাজার মানুষের কাছে পৌঁছে যায়। অর্থাৎ পন্যের বহুল প্রচার হবে। টাকা খরচ করতে না পারলেও পেজে ফলোয়ার থাকলে এমনিতেই আপনি পন্য প্রচার করতে পারেন। বর্তমানে অনেকেই ফেসবুকে বিজনেস করে আয় করছে। তবে ফেসবুকে বিজনেস শুরু করতে হলে তার প্রচারের দরকার হয়। তাই পেজ সর্বোত্তম মাধ্যম পন্য প্রচারের জন্য।


৫. পেইড অনলাইন ইভেন্ট তৈরি করে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

ফেসবুক পেজের মাধ্যমে আয় করার আরেকটি সেরা মাধ্যম হলো পেইড ইভেন্ট তৈরি করে আয়। এরকম ইভেন্টে পেমেন্ট করে জয়েন হতে হয়। বর্তমানে অনেকেই এরকম পেইড ইভেন্ট তৈরি করে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে আয় করছে। যারা অনলাইনে টিউশনি করিয়ে থাকে তারা এরকম ইভেন্ট সাধারণত তৈরি করে। আপনিও আপনার পেজের মাধ্যমে পেইড ইভেন্ট তৈরি করে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে আয় করতে পারেন। এখন লোকে আপনার ইভেন্টে টাকা দিয়ে কেনো জয়েন হবে তার একটি কারণ থাকতে হবে।


ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

ফেসবুক গ্রুপ বর্তমানে সবথেকে শক্তিশালী সোশ্যাল কমিউনিটি হিসেবে মনে করা হয়। ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে যে কেউ তার ভাবনা চিন্তা প্রকাশ করতে পারে। যেহেতু এখানে সবাই সবার ভাবনা চিন্তা প্রকাশ করতে পারে তাই ফেসবুক গ্রুপে বেশি লোক এক্টিভ থাকে। বর্তমানে ফেসবুক গ্রুপ থেকে বিভিন্ন ভাবে আয় করা যায়। চলুন দেখে নিই কি ভাবে ফেসবুক গ্রুপ থেকে আয় করতে পারবেন।


১. ফেসবুক গ্রুপ মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

২০১৮ সালে ফেসবুক গ্রুপ মনিটাইজেশন চালু করে। গ্রুপ মনিটাইজেশন চালু করার প্রধান লক্ষ্য হলো গ্রুপের এডমিনকে পারিশ্রমিক দেওয়া। একজন গ্রুপের এডমিন খুব কষ্ট করে একটি গ্রুপ কে দাড় করায়। তাঁদের কিছুটা পারিশ্রমিক দেওয়ার জন্য ফেসবুক এই গ্রুপ মনিটাইজেশন চালু করে। তবে এটি ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন। এখন গ্রুপ মনিটাইজেশন থেকে কিভাবে আয় হয়? ধরুন একটি কোম্পানি তাদের পন্য প্রচারের জন্য ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিলো। সেই বিজ্ঞাপন দাতার টার্গেট ধরুন দশ হাজার অডিয়েন্স। এর জন্য সেই কোম্পানি ধরুন ফেসবুক কে ১০ ডলার দিতে রাজি আছে। এখন আপনি যদি আপনার মনিটাইজেশন পাওয়া গ্রুপ থেকে সেই পন্যে দশ হাজার অডিয়েন্স এনে দিতে পারেন তাহলে সেই ১০ ডলার আপনি পেয়ে যাবেন। এভাবেই ফেসবুক গ্রুপ মনিটাইজেশনের মাধ্যমে আয় করা যায়। তবে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য আপনাকে কিছু শর্ত পূরণ করা লাগবে। প্রথমত আপনার ফেসবুক গ্রুপে ১০০০ মেম্বার থাকতে হবে। দ্বিতীয়ত গ্রুপটি পাবলিক হতে হবে। তৃতীয়ত এমন কিছু ছাড়া যাবে না যেগুলো ফেসবুকের পলিসি ভঙ্গ করে। এই শর্ত গুলো মানতে পারলে আপনি মনিটাইজেশনের জন্য এপ্লাই করতে পারবেন। এরপর ফেসবুক আপনার গ্রুপ রিভিউ করে মনিটাইজেশন দিয়ে দেবে।


২. স্পন্সর নিয়ে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

হ্যা স্পন্সর নিয়েও ফেসবুক গ্রুপ থেকে আয় করতে পারবেন। অনেক লোক আছে যারা তাদের ছোট খাটো গ্রুপ অন্য বড় গ্রুপ দিয়ে প্রমোট করাই। এর বিনিময়ে সেই গ্রুপের এডমিনকে কিছু টাকা দেওয়া লাগে। আপনার বড় গ্রুপ দিয়ে আপনি এভাবেই আয় করতে পারবেন। শুধু গ্রুপ প্রমোট করেই নয় পন্য প্রচার করেও আয় করতে পারবেন। তবে এর জন্য গ্রুপে অনেক বেশি মেম্বার থাকা লাগবে।


৩. আফিলিয়েট মার্কেটিং করে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমেও আফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করা যায়। ফেসবুক গ্রুপে প্রচুর মেম্বার থাকে যারা অনলাইনে পন্য কেনাকাটা করে। তাদেরকে দিয়ে আপনি আপনার আফিলিয়েট লিংক থেকে পন্য কেনাতে পারেন এবং আয় করতে পারেন। বর্তমানে অনেকেই ফেসবুক গ্রুপে আফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করছে। যেহেতু ফেসবুক গ্রুপ একটি বহুমুখী কমিউনিটি তাই এখানে প্রচুর মেম্বার পাওয়া যায় অর্থাৎ আয়ও অনেক বেশি হয়।


৪. বিজনেস প্রমোট করে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে খুব সহজেই বিজনেস প্রচার করা যায়। যেহেতু গ্রুপে অনেক মেম্বার থাকে তাই বিজনেস প্রচার খুব সহজেই করা যায়। বিজনেস প্রচারের ক্ষেত্রে গ্রুপ একটি মোক্ষম মাধ্যম যেখানে আপনি নির্দিষ্ট অডিয়েন্স খুজে পেয়ে যাবেন। ধরুন আপনার গ্রুপ ডোমেইন হোস্টিং সম্পর্কে। এখন সেখানে ডোমেইন হোস্টিং সমন্ধে যাদের বিন্দু মাত্র জ্ঞান আছে তারাই জয়েন হবে অতএব যদি গ্রুপে আপনার ডোমেইন হোস্টিং এর ব্যবসা প্রচার করেন তাহলে প্রচুর পরিমাণে টার্গেট অডিয়েন্স পেয়ে যাবেন। অর্থাৎ আপনার বিজনেসের বহুল প্রচার হবে।


৫. এডমিন ডিল করে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

এডমিন ডিলের মাধ্যমে খুব সহজেই আয় করা যায়। এখন এডমিন ডিল কি? ধরুন একজন গ্রুপ মেম্বার তার কোনো জিনিস বেচতে চাই। তাই সে আপনার গ্রুপে বিজ্ঞাপন দিলো। ধরুন একজন সেই পন্য কিনতে আগ্রহী হলো। এখন অনলাইনে ধোকা দেওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই একজন তৃতীয় পক্ষ থাকা দরকার যে কোনো চিন্তা ছাড়াই সেই জিনিসটি বিক্রি করতে সাহায্য করবে। যেহেতু সেই তৃতীয় পক্ষ তার সময় নষ্ট করে পন্য বিক্রি করতে সাহায্য করবে তাই তাকে কিছু কমিশন দেওয়া লাগবে। এভাবেই এডমিন ডিল থেকে আয় হয়। এখন কিভাবে এডমিন ডিল করতে হয় চলুন দেখে নিই।


কিভাবে এডমিন ডিল করবেন?

  • প্রথমে যে পন্য বিক্রি করবে সে গ্রুপে বিজ্ঞাপন দেবে।
  • যে পন্য কিনতে ইচ্ছুক সে পন্যের মালিকের কাছে মেসেজ দিবে এবং দাম দর ঠিক করে নেবে।
  • এরপর তারা এডমিন কে মেসেজ দিবে এবং ক্রেতা, বিক্রেতা ও এডমিন মিলে একটি সাময়িক গ্রুপ খুলবে।
  • ক্রেতা এডমনিকে আগে থেকে যা দাম দর হয়েছিলো সেই পরিমাণ টাকা পাঠিয়ে দেবে।
  • পন্য ক্রেতাকে বুঝিয়ে দেওয়ার পর এডমিন বিক্রেতাকে কিছু কমিশন রেখে টাকা দিয়ে দেবে।


এভাবেই এডমিন ডিল করা হয়। আপনি যদি গ্রুপের এডমিন হয়ে থাকেন তাহলে এভাবে এডমিন ডিলের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। বর্তমানে অনেকেই এভাবে আয় করছে। কিছু কিছু গ্রুপ আছে যেখানে শুধু বেচা কেনা হয়। অর্থাৎ সেই গ্রুপের এডমিনের অনেক লাভ হয়। আপনিও এমন একটি গ্রুপ খুলে এডমিন ডিলের মাধ্যমে আয় করতে পারেন।


ফেসবুক মার্কেটিং করে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

বর্তমানে ফেসবুক মার্কেটিং একটি জনপ্রিয় বিজনেস আইডিয়ার মধ্যে একটি। খুব সহজেই ফেসবুক মার্কেটিং করে নিজের পন্য বিক্রি করা যায়। বর্তমানে অনেকেই ফেসবুকের মাধ্যমে নিজের পন্য বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে। আপনিও চাইলে আপনার পন্য ফেসবুকের মাধ্যমে বিক্রি করে আনলিমিটেড মুনাফা আয় করতে পারেন। তবে এর জন্য প্রয়োজন বিজনেস সম্পর্কে প্রচুর জ্ঞান। যেহেতু ফেসবুকে প্রচুর বিজনেস গড়ে উঠেছে তাই তাদের সাথে টক্কর দেওয়ার জন্য প্রথম দিকে প্রচুর খাটতে হয় এবং সাথে পরিশ্রমও করতে হয়। তবে বিজনেস একবার পাকাপোক্ত স্থান করে নিলে আর আপনাকে খরচ করা লাগবে না এমনিতেই কাস্টমার অনেক বেড়ে যাবে। বর্তমানে ফেসবুকের মাধ্যমে পন্য বিক্রি করাও অনেক সহজ। আপনি ম্যাসেন্জারের মাধ্যমে কাস্টমারের সাথে কথা বলতে পারবেন এবং পন্য বিক্রিও করতে পারবেন। যদি অনলাইনে একটি বিজনেস শুরু করে আয় করতে চান তাহলে এখনই কাজ শুরু করে দিন যেহেতু দিন দিন ব্যবসার পরিমাণ অনেক বেড়ে যাচ্ছে তাই তাদের সাথে টক্কর দেওয়াও কঠিন হয়ে পড়ছে।


আরোও পড়ুন: ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক মার্কেটিং আল্টিমেট গাইডলাইন


পেজ বুস্ট করে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২ 

ফেসবুক পেজ অনেকের বুস্ট করা লাগে বিশেষ করে যারা নতুন ফেসবুকে ব্যবসা করেছে। তবে অনেকের কাছে বুস্ট করার জন্য পেমেন্ট ম্যাথড থাকে না। তাই অন্যদের সহযোগিতা নিতে হয়। এখন আপনার কাছে যদি পেমেন্ট ম্যাথড থাকে তাহলে অন্যের ফেসবুক পেজ বুস্ট করে মুনাফা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে প্রচুর লোক আছে যারা এভাবে আয় করছে। বর্তমানে ফেসবুকে মাস্টারকার্ড, ভিসা কার্ড এবং পেপাল দিয়ে বুস্ট করা যায়। মাস্টারকার্ড এবং ভিসা কার্ড বাংলাদেশ থেকে কিনতে গেলে অনেক টাকা লাগে তাই পেপাল দিয়ে কাজ চালানো যায়। কিন্তু পেপাল বাংলাদেশ চলে না। তবে চিন্তার কোনো কারন নেই। অনেকে ভেরিফাইড পেপাল একাউন্ট বিক্রি করে তাদের কাছ থেকে একটি একাউন্ট কিনে নিতে পারেন এবং অন্যের পেজ বুস্ট করে আয় করতে পারেন।


ফেসবুক পেজ সেল করে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২ 

অনেকেই আছে যারা পেজ বিক্রি করার জন্য ফলোয়ার তৈরি করার চেষ্টা করে। যদিও এখন বেশি ফলোয়ার হলেও পেজের দাম কম থাকে কিন্তু যারা ফেসবুক মার্কেটিং করতে চাই তাদের একটি বেশি ফলোয়ার সমৃদ্ধ ফেসবুক পেজ প্রয়োজন হয়। ফেসবুকে ফলোয়ার তৈরি করা তেমন কষ্টসাধ্য বিষয় নয়। ফেসবুক আইডিতে ফ্রেন্ড থাকলে অনেক ফলোয়ার পাওয়া যায়। তাছাড়া পেজে দৈনিক পোস্ট করলে এমনিই ফলোয়ার চলে আসে। অতএব পেজে লাইক পাওয়া তেমন কষ্টসাধ্য বিষয় নয়। আপনার ফ্রেন্ড সার্কেল বড় থাকলে তাদেরকে ইনভাইট করে পেজে ফলোয়ার বাড়াতে পারেন। এরপর দৈনিক পোস্ট করে আরোও ফলোয়ার বাড়িয়ে নিন এবং ভালো পরিমাণে ফলোয়ার বেড়ে গেলে তখন পেজটিকে বেচে দিন। এভাবেই আপনি পেজ বিক্রি করে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারেন।


ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২

বর্তমানে ফেসবুক থেকে আয়ের জনপ্রিয় মাধ্যম গুলোর মধ্যে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল একটি। এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে একটি ওয়েবসাইট এবং একটি ফেসবুক পেজ। অনেক নিউজ মিডিয়া এখন ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সাথে যুক্ত হয়েছে তার মধ্যে প্রথম আলো এবং সময় টিভি বাংলাদেশ থেকে। ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের মাধ্যমে একজন ভিজিটর কোনো ব্রাউজার অপেন না করেই আর্টিকেল পড়তে পারে। আবার ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে মনিটাইজেশন নিয়ে আপনি আয়ও করতে পারবেন। চলুন দেখে নিই ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সুবিধা এবং অসুবিধা।


ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সুবিধা:-

  • খুব তাড়াতাড়ি পেজ অপেন হবে তাই ভিজিটর আর্টিকেল পড়তে স্বাছন্দ্য বোধ করবে।
  • মনিটাইজেশন নিয়ে আর্টিকেলে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করতে পারবেন।
  • ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভ হলে পোস্টের প্রাওরিটি বেড়ে যায় তাই খুব সহজেই আর্টিকেল ফেসবুকে র‌্যাংক করে।


ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের অসুবিধা:-

  • তাড়াতাড়ি পেজ অপেন হওয়ার জন্য ফেসবুক একটি সাধারণ পেজ তৈরি করবে তাই অন্যান্য বাটন ভালো ভাবে কাজ করবে না।
  • অর্গানিক ভিজিটর কমে যাবে। ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভ পাওয়ার আগে আপনার ওয়েবসাইটের টার্গেট অডিয়েন্স ছিলো সার্চ ইঞ্জিন কিন্তু এপ্রুভ পাওয়ার পর টার্গেট অডিয়েন্স হবে ফেসবুক তাই ভিজিটর কমে যেতে পারে।


তবে ফেসবুক থেকে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আয় করার এটি একটি সর্বোত্তম মাধ্যম। আর্টিকেলে ভালো ভিজিটর পেলে আয়ও আপনার বেড়ে যাবে। কিন্তু ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভ পেতে হলে কিছু শর্ত পূরণ করা লাগবে। শর্ত গুলোর মধ্যে সবথেকে বেশি গুরুত্বপুর্ন হলো নিয়মিত পোস্ট করা। এরপর সাইটে ফিশিং বা ১৮+ আর্টিকেল থাকা যাবে না। এই শর্ত গুলো মানতে পারলে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভ পেতে পারেন। এরপর মনিটাইজেশন অন করে আনলিমিটেড আয় করতে পারেন।


ফেসবুক অ্যাপ মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় ২০২২ 

আমরা অনেকেই জানি অ্যাপে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করা যায়। সাধারণত বেশিরভাগ অ্যাপ ডেভেলপার গুগল এডমোবের বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করে। কিন্তু ফেসবুকের বিজ্ঞাপন দেখিয়েও আপনি করতে পারবেন। বর্তমানে অনেক অ্যাপ ডেভেলপার ফেসবুকের বিজ্ঞাপন অ্যাপে দেখিয়ে আয় করছে। আপনিও আপনার অ্যাপে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় পারবেন।


আজ এ পর্যন্তই। বুঝতে কোথাও সমস্যা হলে আমাদের কমেন্টে জানিয়ে দিন। যথাসম্ভব সাহায্য করার চেষ্টা করবো।


ধন্যবাদ সবাইকে

Leave a Comment